সোমবার , ২৪ জানুয়ারি ২০২২ | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দুর্নীতি
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরও
  5. ইসলাম
  6. করোনাভাইরাস
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. বানিজ্য
  10. বিনোদন
  11. রাজনীতি
  12. লাইফস্টাইল
  13. শিক্ষা
  14. সর্বশেষ
  15. সারাদেশ

গর্ভবতী নারী ও অসুস্থরা ঘরে থেকে অফিস করবেন

প্রতিবেদক
দৈনিক তোলপাড়
জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক .

 

করোনা সংক্রমণ রোধে অর্ধেক জনবল নিয়ে অফিস পরিচালনার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে জানিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, গর্ভবতী নারী এবং অসুস্থ ব্যক্তিরা ঘরে থেকে অফিস করবেন।
সোমবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। চলমান বিধিনিষেধগুলো আরও বাড়ানো হবে কি না তা এক সপ্তাহ পর জানা যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
সংক্রমণ রোধে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত, বেসরকারি অফিসগুলো স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক অর্ধেক সংখ্যক কর্মকর্তা -কর্মচারী নিয়ে পরিচালনা করতে রোববার নির্দেশনা দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অন্যান্য কর্মকর্তা/কর্মচারীরা নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করবেন এবং দাপ্তরিক কার্যক্রম ভার্চ্যুয়ালি (ই-নথি, ই-টেন্ডারিং, ই-মেইল, এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপসহ অন্যান্য মাধ্যম) সম্পন্ন করবেন।
এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, যেহেতু তৃতীয় ঢেউয়ে আছি, আমাদের প্রথম ও দ্বিতীয় ঢেউয়ে এ রকম নির্দেশনা ছিল, সেগুলো আমরা বাস্তবায়ন করেছি। যার কারণে অর্ধেক সংখ্যক নিয়ে যে অফিস করা এবং এরও কম সংখ্যক নিয়ে অফিস করার প্রাকটিস করেছি। সেইজন্য আমাদের প্রাকটিস আছে। যারা সাধারণত গর্ভবতী নারী, যারা একটু অসুস্থ এরা ঘরে থেকে অফিস করেন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে। বিশেষ করে জুম, ই-নথি, এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে তারা তাদের কাজগুলো চালিয়ে নেবেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে আমরা সবাইকে জানিয়েছি এবং মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য অফিস, রাস্তাতে যানবাহনের সংখ্যা দেখে বুঝতে পেরেছেন যে মানুষ কিন্তু ইতোমধ্যে সচেতন হয়েছেন এবং আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা রয়েছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তারাও কিন্তু উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। যার কারণে এটি বাস্তবায়ন ইতোমধ্যে দেখছি।
এসব বিধিনিষেধ আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলমান থাকবে। ৬ ফেব্রুয়ারির পর এই বিধিনিষেধ বাড়বে কি না জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, অবশ্যই। পরিস্থিতি বিবেচনা করে। কারণ, আমাদের সচেতনতার ওপরে, এখন যে ভ্যারিয়েন্টটা দেখছি ওমিক্রন, সেটা সেরে উঠতে অল্প সময় নিচ্ছে। রিকভারি রেট কিন্তু খুবই ভালো। ৮৫ শতাংশের বেশি সংখ্যক আক্রান্ত মানুষ ঘরে থেকে ট্রিটমেন্ট নিতে পারছেন এবং তারা সেরে উঠছেন।
আমরা অবশ্যই আগামী এক সপ্তাহ পর দেখব এটা কী পর্যায়ে আছে, সেই অনুযায়ী আমরা পরবর্তী নির্দেশনা দেব।

সর্বশেষ - সর্বশেষ