আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রথমবার একসঙ্গে লিজা-ইউসুফ

Spread the love

বিনোদন প্রতিবেদক.
পেশাগতভাবে বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনে একই বছর অর্থাৎ ২০০৮ সালে সানিয়া সুলতানা লিজা ও ইউসুফ আহমেদ খানের যাত্রা শুরু হয়েছিলো। ‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ রিয়েলিটি শো’ত সে বছর চ্যাম্পিয়ন হন লিজা। একই বছর ‘চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’ প্রতিযোগিতায় শীর্ষ পাঁচ-এ ছিলেন ইউসুফ। এরইমধ্যে লিজা অনেক মৌলিক গান গায়, দেশ বিদেশে অসংখ্য স্টেজ শো’তে অংশ নিয়ে নিজেকে সঙ্গীতাঙ্গনে আলাদা একটি অবস্থানে নিয়ে আসতে পেরেছেন। এক কথায়, দেশ বিদেশে ভীষণ জনপ্রিয় লিজা, নিজের নামকে সঙ্গীতাঙ্গনে একটি ব্র্যান্ড-এ পরিণত করেছেন।

অন্যদিক ওস্তাদ ইয়াকুব আলী খানের ছেলে ইউসুফ আহমেদ খান একটু একটু করে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে এসে একযুগ পরে হলেও সঙ্গীতপ্রেমী এবং শ্রোতা দর্শকের কাছে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে এসেছেন। এই মুহুর্ত ইউসুফ আহমেদ খান মৌলিক গানের প্রতি ভীষণ মনোযাগী। লিজা ও ইউসুফের একসঙ্গে পথ চলা হলেও কখনো তাদর একসঙ্গে গান করা হয়ে উঠেনি। এবারই প্রথম আগামী ঈদে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারের জন্য তারা দু’জন মুনশী ওয়াদুদের লেখা ও শেখ সাদী খানের সুর সঙ্গীতে ‘গোলাপের পাঁপড়িতে দুটি হাত’ গানটি একসঙ্গে গেয়েছেন। গানটির মূল শিল্পী রফিকুল আলম ও আবিদা সুলতানা। এরইমধ্যে বিটিভিতে গানটির রেকর্ডিং-এর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ঈদে বিটিভি’র ‘স্মৃতির সুরভী গানে গানে’ অনুষ্ঠানে লিজা ও ইউসুফের গাওয়া এই গানটি প্রচার হবে।

গানটি প্রসঙ্গে লিজা বলেন, ‘যেহেতু আমাদের যাত্রা একই সময়ে দুটি ভিন্ন রিয়েলিটি শো দিয়ে, তাই ইউসুফের প্রতিযোগিতার পর্বগুলো যখন প্রচার হতো তখন তা দেখতাম। ইউসুফের কন্ঠ আমার কাছ সবসময় পরিণত মন হতো। আমার কেন জানি মনে হতো ইউসুফই চ্যাম্পিয়ন। আর শেখ সাদী স্যারের গান গাওয়া তো আসলে সবসময়ই চ্যালেঞ্জিং। আমার অনেক ব্যস্ততা থাকলেও তার গান গাইতে যখন আমাকে ডাকা হয়, তখন আমি আগ্রহ নিয়েই তা করতে যাই। আমার নিজেকে সমদ্ধ করতেই স্যারের সুর করা গান গাই। এই গানটি খুব বেশি প্রচলিত নয়, তবে গানটি এক কথায় অসাধারণ।’

ইউসুফ বলেন,‘লিজা নি:সন্দেহে আমাদের সময়ের অন্যতম সফল ও জনপ্রিয় শিল্পী। কিংবদন্তী শিল্পীদের, সুরকারদের এবং সিনেমার গান গাইবার সময় ভীষণ যত্নশীল থাকে। একজন শিল্পীর যেসব গুণাবলী থাকা জরুরী, তার সবই আছে। তার গান আমার ভীষণ পছন্দ। তারসঙ্গে গাইতে পেরে খুব ভালো লাগছে। ধন্যবাদ সাদী স্যারকে এমন একটি গানের সাথে আমাকে সম্পৃক্ত রাখার জন্য। কৃতজ্ঞতা স্যারের প্রতি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সম্প্রতি প্রকাশিত আরো সংবাদ