আজ ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কাউন্সিলর হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ১

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি :
নির্বাচনে বিজয়ী হবার দশ মিনিটের মধ্যে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ও তার সমর্থকদের ছুরিকাঘাতে নিহত সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল ইসলাম খান হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

রবিবার (১৭ জানুয়ারি) রাতে নিহত তরিকুল ইসলামের ছেলে হৃদয় খান বাদী হয়ে ৩২জন নামীয়সহ অজ্ঞাত আরো ৩০/৪০জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন বুদ্দিনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহার নামীয় ২৭নং আসামি বেপারী মহল্লার স্বপন বেপারীকে আটক করেছে।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাহাউদ্দিন ফারুকী মামলা ও গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ মাঠে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

প্রসঙ্গত, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের (বেপারীপাড়া-শহিদগঞ্জ-নতুন ভাঙ্গাবাড়ী) কাউন্সিলর পদে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও বেপারী গ্রামের শাহাদত হোসেন বুদ্দিন ও নতুন ভাঙ্গাবাড়ী গ্রামের তরিকুল ইসলাম খানের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়। ১৬ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ শেষে শহীদগঞ্জ কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা দেরি হওয়ায় কাউন্সিলর তরিকুল ইসলাম খান কয়েকজন সমর্থক নিয়ে শহীদগঞ্জে সরকারী প্রাথমিক কেন্দ্রে গিয়ে ভোট গণনা কক্ষে ঢুকতে যান। এসময় কেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তাকে কক্ষে ঢুকতে না দেয়ায় কেন্দ্রের ভেতরে তিনি অবস্থান নেন। কিছুক্ষণ পর প্রিজাইডিং অফিসার ফলাফল ঘোষণা করেন। ফলাফলে তরিকুল ইসলাম খান ৮৫ ভোটে বিজয়ী হওয়ায় তার সমর্থকরা স্লোগান দিতে থাকে। এসময় ওই কেন্দ্রের ভোট গণনা কক্ষে পূর্ব থেকেই অবস্থান নেয়া প্রতিদ্বন্ধীপ্রার্থী শাহাদত হোসেন বুদ্দিন ও তার সমর্থকরা ভোট গণনা কক্ষ থেকে বের হয়েই তরিকুল ইসলামের উপর হামলা চালায়।

একপর্যায়ে তারা তরিকুলের পাঁজরে ছুরিকাঘাত করেন। গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। বেপারীপাড়া ও নতুন ভাঙ্গাবাড়ী মহল্লায় মোড়ে মোড়ে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সম্প্রতি প্রকাশিত আরো সংবাদ