আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুয়াশার দোহাই দিয়ে আবার বাড়ছে আলু-পেঁয়াজের দাম

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কিছুটা কমার পর সপ্তাহ না ঘুরতেই রাজধানীর বাজারগুলোয় আবার বেড়েছে আলু ও পেঁয়াজের দাম। কেজিতে বেড়েছে ১০ টাকা পর্যন্ত। কুয়াশা ও শীতের কারণে বাজারে নিত্য এ দুই পণ্যের সরবরাহ কম থাকায় দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তবে শীতের সবজি ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, মুলা ও শালগমের সরবরাহ বাড়ায় কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছে সবজির বাজারে। প্রায় এক মাস ধরে বেশিরভাগ সবজি ৩০ টাকার মধ্যেই মিলছে। তবে পাকা টমেটো ও বরবটির দাম এখনো বেশ চড়া।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে গতকাল দেখা গেছে, পুরাতন আলুর কেজি বিক্রি হচ্ছে সেই আগের দামেই, ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়। গত সপ্তাহেও যা কিছুটা কমে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় নেমেছিল। অপরদিকে মাসখানেক আগে একশ টাকার ওপরে কেজি বিক্রি হওয়া নতুন আলুর দাম কয়েক দফা কমে গত সপ্তাহে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় নেমে এসেছিল। সেই আলুও হঠাৎ করে দাম বাড়িয়ে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে।

সবজির মৌসুমেও দাম বাড়ার কারণ হিসেবে কারওয়ানবাজারের ব্যবসায়ী মিলন মিয়া বলেন, পুরাতন আলুর পাশাপাশি বাজারে এখন নতুন আলুও পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু কয়েকদিন ধরে কুয়াশা থাকায় ঢাকায় আলুর গাড়ি কম আসছে। ফলে নতুন আলুর সরবরাহ কমেছে। তা ছাড়া বাজারে এখন নতুন আলুর চাহিদাও বেশি। এ কারণেই দাম বেড়েছে। কুয়াশা কেটে গেলে আলুর দাম আবার কমে যাবে।

এদিকে আলুর মতো ভোগাচ্ছে পেঁয়াজও। দীর্ঘদিন ধরে অস্বস্তিতে রাখা নিত্যপণ্যটির দাম গত সপ্তাহে কিছুটা কমেছিল। কিন্তু তা এক সপ্তাহের বেশি স্থি’র হয়নি। যে দেশি পেঁয়াজের কেজি ৫০ টাকায় নেমেছিল, তার দাম বেড়ে এখন ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। তবে আমদানি করা পেঁয়াজ আগের মতো ৩০ থেকে ৪০ কেজিতেই পাওয়া যাচ্ছে।

সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহের মতো শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস ২০ থেকে ৩০ টাকা। মুলা ১০ থেকে ১৫ টাকা কেজিতে পাওয়া যাচ্ছে। ৪০ টাকার মধ্যে মিলছে বড় লাউ। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি। বেগুনের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, উচ্ছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ থেকে ৫০ টাকা, পটোল ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

বেশিরভাগ সবজির দাম কমলেও এখনো চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে পাকা টমেটো ও বরবটি। পাকা টমেটোর কেজি গত সপ্তাহের মতো ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা কেজি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সম্প্রতি প্রকাশিত আরো সংবাদ