আজ ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রকৃতি সেজেছে হলুদ বরণ সাজে

তোলপাড় ডেস্ক:

চারদিকে নজর কাড়া সরিষার হলুদ ফুলের সমারোহ। জামালপুর জেলার বিস্তীর্ণ এলাকায় এ মৌসুমে সরিষার চাষ হচ্ছে। সরিষার সবুজ গাছের হলুদ ফুলগুলো শীতের রোদে যেন ঝিকমিক করছে। দেখে মনে হয় যেন প্রকৃতি সেজেছে হলুদ বরণ সাজে। মৌমাছির গুণগুণ শব্দে ফুলের রেণু থেকে মধু সংগ্রহ আর প্রজাপতির এক ফুল থেকে আরেক ফুলে পদার্পণ এ এক অপরূপ দৃশ্য।

সরিষা ফুলের এ দৃশ্য পাল্টে দিয়েছে জামালপুর সদর, মেলান্দহ, দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর, মাদারগঞ্জ, সরিষাবাড়ি, বকশীগঞ্জ উপজেলার ফসলের মাঠের চিত্র। শীতের শিশির ভেজা সকালে ঘন কুয়াশার মোড়ানো মাঠ দেখে মন জুড়িয়ে যায় প্রকৃতিপ্রেমীদের।

ইসলামপুরের কৃষক এনামুল হক বলেন, সরিষা চাষে খরচ কম। কিন্তু লাভটা বেশি। তাই অনেকেই এবার সরিষার চাষ করেছে। জমিতে একবার সার দিলেই হয়। তাই অন্য ফসলের চেয়ে পরিশ্রমও কম।

সরিষাসহ বিভিন্ন কৃষি পণ্যের ক্ষেত্রে সরকারিভাবে কিছু সহায়তা করলে এখানকার কৃষকরা আরও বেশি উপকৃত হতো বলে তিনি জানান।

মেলান্দহ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফয়সাল আহাম্মেদ জানান, এবারে মেলান্দহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ১০ হাজার হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় বেশি। যথা সময়ে জমি চাষ হওয়ায় এলাকার কৃষকরা সুযোগ বুঝে সরিষা চাষ করেছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে কোনো ক্ষতি না হলে মেলান্দহে সরিষার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু তাই নয়, সরিষা চাষের জমিগুলো উর্বরতা বেশি থাকায় কৃষকরা বোরো চাষেও এর সুফল পান।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আমিনুল ইসলাম বলেন, আমরা কৃষি বিভাগ থেকে কৃষককে প্রশিক্ষণ ও সঠিক পরামর্শ দিয়ে সহায‌্য করার চেষ্টা করছি। অনেক কৃষক আমাদের পরামর্শে সাবলম্বী হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সম্প্রতি প্রকাশিত আরো সংবাদ