আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সন্তানের বাবা কে বলতে পারেনা মানসিক প্রতিবন্ধী অন্ত:স্বত্ত্বা কিশোরী!

Spread the love

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি.
কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় চৌদ্দ-পনেরো বছর বয়সী মানসিক প্রতিবন্ধী আট মাসের অন্ত:স্বত্ত্বা এ কিশোরীটি রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। বিষয়টি নজরে আসলে পুলিশের সহমর্মিতায় তার এখন ঠাঁই হয়েছে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সন্তান প্রসবকালীন সময় ঘনিয়ে আসলেও পাশে নেই অনাগত শিশুর জন্মদাতা পিতা কিংবা নিকটাতœীয় পরিবার-স্বজন। এখনো বলতে পারে কে তার ধর্ষক বা এ সন্তানের বাবা কে হবে? কি তার পরিচয়। ঠিক এমন পরিস্থিতিতে পুলিশই নাম-পরিচয়হীন ওই এ সন্তান সম্ভবা কিশোরীর স্বজন হয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদের নির্দেশে পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. সারোয়ার জাহানই অভিভাবকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন মেয়েটির জন্য। তিনি নিয়মিত নিয়মিত খোঁজখবর রেখে পোশাক-পরিচ্ছেদ এবং ফলমূলসহ পুষ্টিমান সম্মত খাবার সরবরাহ করছেন ওই কিশোরী প্রসূতিকে। নিয়মিত স্বাস্থ্য সেবা দেয়ার পাশাপাশি ও মানসম্মত খাবারের খোঁজ রাখছেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শারমিন শাহনাজও।
ওসি সারোয়ার জাহান জানান, গত ২৯ অক্টোবর রাস্তা থেকে গুরুতর অসুস্থ মানসিক ভারাসাম্যহীন ও অন্ত:সত্ত্বা ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে পাকুন্দিয়া থানা পুলিশ। পরবর্তীতে পুলিশ সুপারের নির্দেশে ওই কিশোরীর সার্বিক তত্ত্বাবধানের দায়িত্ব নেন তিনি। ওসি সারোয়ার জাহান আরও জানান, ওই হতভাগ্য মানসিক ভারসাম্যহীন অন্তঃস্বত্ত্বা কিশোরীটির পরিচয় জানতে দেশের প্রতিটি থানায় বার্তা পাঠানো হয়েছে। কিন্তু শনিবার (৭ নভেম্বার) বিকাল পর্যন্ত কোনো পরিবার স্বজনের সাড়া মিলেনি।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এর আগে ওই কিশোরীটিকে পার্শ্ববর্তী কটিয়াদী উপজেলার মসুয়া ও উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ঘুরাঘুরি করতে এবং যেখানে সেখানে রাত্রিযাপন করতে দেখেছে লোকজন। অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে একটি সমাজসেবী সংগঠনের লোকজন তাকে উদ্ধার করে কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিও করেছিলেন। কিন্তু দু’দিনের নাথায় রহস্যজনকভাবে সেই হাসপাতাল থেকে নিখোঁজ হন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে, এ মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোরীটি ঠিকানাহীন ভাবে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়ানোর সময়-ই কোনো মানুষরূপী অমানুষ দ্বারা ধর্ষিত হয়ে অন্ত:স্বত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষায় সে আট মাসের গর্ভবর্তী প্রসূতি বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     সম্প্রতি প্রকাশিত আরো সংবাদ