শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

নকল ও ভেজাল ওষুধ বিক্রির বিরুদ্ধে আসছে কঠোর আইন

তোলপাড় ডেস্ক :
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, সরকার জনস্বাস্থ্যের নিরাপত্তার স্বার্থে ভেজাল ও নকল ওষুধ বিক্রির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ওষুধ আইনকে আরও যুগোপযোগী ও কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা রেখে প্রস্তাবিত আইন অনুমোদনের প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

জাতীয় সংসদে রবিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সাংসদ বেনজীর আহমেদের প্রশ্নে লিখিত উত্তরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষকে সুস্থ ও নেশামুক্ত রাখতে হবে, তামাক থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে হবে। এ জন্য সবার সর্বাত্মক সহযোগিতা দরকার। নকল-ভেজাল ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর ও অন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়ে আসছে।

মন্ত্রী বলেন, নকল ও ভেজাল ওষুধ উৎপাদন এবং বিক্রির দায়ে ৩৯ জন আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড এবং ৪৪টি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হয়েছে। জব্দ ও ধ্বংস করা হয়েছে প্রায় ৩২ কোটি টাকা মূল্যের নকল-ভেজাল ওষুধ। বিদ্যমান ওষুধ আইনকে আরো যুগোপযোগী ও কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা রেখে প্রস্তাবিত আইন অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াধীন ।

সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ মমতা হেনা লাভলীর আরেক প্রশ্নে জাহিদ মালেক স্বপন বলেন, তামাক সেবনের কারণে ১২ লাখ মানুষ বিভিন্ন অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত হয়ে ৩ লাখ ৮২ হাজার মানুষ অকাল পঙ্গুত্বের শিকার হয়।

তিনি বলেন, মুখ গহ্বরের ক্যানসার প্রধাণত ধোঁয়াবিহীন বিভিন্ন তামাক সেবন, পানের সঙ্গে জর্দা বা সাদাপাতার ব্যবহার এবং মাড়িতে গুল ব্যবহারের কারণে হয়। ট্যোবাকো অ্যাটলাস ২০১৮ অনুযায়ী, তামাকজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে প্রতিবছর এক লাখ ৬১ হাজারের অধিক লোক মৃত্যুবরণ করে। তামাক হচ্ছে এমন একটি ক্ষতিকর পণ্য, যা উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সেবন- প্রতিটি ক্ষেত্রেই পরিবেশ, জনস্বাস্থ্য, অর্থনীতির ক্ষতি করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: