বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১:২৬ পূর্বাহ্ন

ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির ১ বছর

ক্রীড়া ডেস্ক:
ভারত সফরের মাধ্যমে শেষ হয়েছে ২০১৯ সালে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের আন্তর্জাতিক ম্যাচ। বিশ্বকাপের বছরে বাংলাদেশ খেলেছে ১৮টি ওয়ানডে, ৫টি টেস্ট ও ৭টি টি-টুয়েন্টি। এ বছর ৭টি ওয়ানডে ও ৪টি টি-টুয়েন্টি জিতলেও টেস্টে জয়ের স্বাদ পায়নি।

সাকিব-তামিমদের ২০১৯ সাল শুরু হয় হার দিয়ে। চলতি বছর বাংলাদেশ প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে নেপিয়ারে নিউজিল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটে হারে বাংলাদেশ। এরপর সিরিজের পরের দুই ম্যাচও হেরে হোয়াটওয়াশ মাশরাফি বাহিনী।

বছরের প্রথম টেস্টেও বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। একই সফরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি টেস্ট খেলে বাংলাদেশ। দুটি ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে হারে টাইগাররা।

তিন মাস বিরতির পর চলতি বছরের মে মাসে বাংলাদেশ দ্বিতীয় ওয়ানডে সিরিজ খেলে। আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত সে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নেয় বাংলাদেশ, আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গ্রুপ পর্বের একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পণ্ড হওয়ায় বাংলাদেশ খেলে মোট ৩টি ম্যাচ। আর তিনটিতেই জিতে অপরাজিত দল হিসেবে ফাইনালে ওঠে টাইগাররা। বৃষ্টি বিঘ্নিত ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবার বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ে স্বাদ পায় বাংলাদেশ।

ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতেই মাশরাফির নেতৃত্বে বিশ্বকাপ খেলতে যায় বাংলাদেশ। তবে বিশ্বকাপে আশানুরূপ ফল পায়নি সাকিব-তামিমরা। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান দুর্দান্ত খেললেও বাকিদের ব্যর্থতায় পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থেকে টুর্নামেন্ট শেষ করতে হয়েছে। বিশ্বকাপের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২১ রানে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছিল বাংলাদেশ। তবে পরের ৮ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় পেলেও হারতে হয়েছে পাঁচটিতেই। এছাড়া শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাকি এক ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল।

বিশ্বকাপের পরই শ্রীলঙ্কা সফরে যায় বাংলাদেশ। দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিশ্রামে থাকায় নেতৃত্ব ভার ছিল তামিমের কাঁধে। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের তিনটিতেই হেরে হতাশ করেন তামিম।

প্রায় সাত মাস পর বছরের তৃতীয় টেস্ট খেলে বাংলাদেশ। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ঘরের মাঠে সে ম্যাচে নবাগত আফগানিস্তানের বিপক্ষেও হারের লজ্জা পায় টাইগাররা। ২২৪ রানের বড় ব্যবধানে হারে সাকিবের দল।

বছর প্রথম টি-টুয়েন্টি খেলতে লেগে যায় ৯ মাস। সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়েকে সঙ্গে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজন করে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় দিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু করলেও পরের ম্যাচেই ধাক্কা খায় সাকিবরা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ ২৫ রানে হারে তারা। এরপরের দুই ম্যাচে অবশ্য জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তানকে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত করে। তবে বৃষ্টির কারণে ফাইনাল পরিত্যক্ত হওয়ায় বাংলাদেশকে আফগানিস্তানের সঙ্গে ট্রফি ভাগাভাগি করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়।

২০১৯ সালের শেষ আন্তর্জাতিক সিরিজটি খেলে ভারতের বিপক্ষে। প্রথমবার ভারতের মাটিতে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে ভারত সফরে টাইগার বাহিনী। এ সফরে তিনটি টি-টুয়েন্টি ও দুটি টেস্ট খেলে। এ সিরিজেই ভারতের বিপক্ষে প্রথম টি-টুয়েন্টি জয়ের স্বাদ পায়। মাহমুদউল্লাহর নেতৃত্বে টি-টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতলেও বাকি দুটিতে হেরে সিরিজ হারতে হয়েছে। এছাড়া দুই টেস্টের দুটিতেই হেরেছে ইনিংস ব্যবধানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: