সোমবার, ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন

জাতীয় পতাকা ব্যবহারের নিয়ম

নিজস্ব প্রতিবেদক;
কোনো দেশের পরিচয়, জাতীয়তা, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক ‘জাতীয় পতাকা’। স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের অস্তিত্বের প্রতীক হচ্ছে আমাদের সবার প্রিয় সবুজের বুকে লাল পতাকা।

কিন্তু জাতীয় পতাকা ব্যবহারের বিধি সম্পর্কে অনেকেই জানেন না বা জেনেও তা মানেন না। অথচ গুরুত্বপূর্ণ এ প্রতীক ব্যবহারের জন্য সুস্পষ্ট বিধিমালা রয়েছে। এ পতাকাকে সঠিকভাবে উত্তোলন কিংবা সঠিক মাপে তৈরি করাও অতি জরুরি। যে পতাকার জন্য লাখো শহীদ নিজের বুকের তাজা রক্ত দিয়েছিল তার মান অক্ষুণ্ণ রাখতে হবে।

জাতীয় পতাকার সঠিক মাপ এবং ব্যবহারের নিয়ম-

১. বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার গাঢ় সবুজ বর্ণের আয়তক্ষেত্রের মাঝখানে একটা ভরাট রক্তিম বৃত্ত নিয়ে এটা তৈরি। এর দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের অনুপাত ১০:৬। পতাকার মাঝখানের লাল বৃত্তটির ব্যাসার্ধ হবে পতাকার দৈর্ঘ্যের ৫ ভাগের একভাগ।

২. পতাকা টানানোর ক্ষেত্রে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে এটি এমন জায়গায় টানানো না হয় যাতে এর মান অক্ষুণ্ণ হয়।

৩. বাংলাদেশের পতাকার উপরে অন্য কোনো পতাকা বা রঙিন পতাকা উত্তোলন করা যাবে না।

৪. যেসব ক্ষেত্রে কেবলমাত্র দুটি পতাকা অথবা রঙিন পতাকা উত্তোলন করা হয়, সেক্ষেত্রে ‘বাংলাদেশের পতাকা’ ভবনের ডানদিকে উত্তোলন করা হবে।

৫. পতাকা দিয়ে মোটরযান, রেলগাড়ি অথবা নৌযানের খোল, সম্মুখভাগ অথবা পেছনের অংশ কোনো অবস্থাতেই ঢেকে দেওয়া যাবে না।

৬. যে ক্ষেত্রে ‘বাংলাদেশের পতাকা’ অর্ধনমিত থাকে, সেক্ষেত্রে প্রথমে সর্বোচ্চ চূড়া পর্যন্ত উত্তোলন করা হবে এবং অতঃপর নামিয়ে অর্ধনমিত অবস্থায় আনা হবে। ওই দিবসে পতাকা নামানোর সময় পুনরায় উপরিভাগ পর্যন্ত উত্তোলন করা হবে, অতঃপর নামাতে হবে।

৭. যে ক্ষেত্রে অন্য কোনো দেশের সহিত ‘বাংলাদেশের পতাকা’ একত্রে উত্তোলন করা হয়, সেক্ষেত্রে ‘বাংলাদেশের পতাকা’ প্রথমে উত্তোলন করতে হবে এবং নামানোর সময় সবশেষে নামাতে হবে।

৮. ‘পতাকা’ কখনোই তার নিচের কোনো বস্তু যেমন- পানি বা কোনো পণ্যদ্রব্য স্পর্শ করবে না।

৯. পতাকা কোনো ব্যক্তি বা জড়বস্তুর দিকে নিম্নমুখী করা যাবে না।

১০. পতাকাকে কখনো পদদলিত করা যাবে না।

১১. কোনো কিছু গ্রহণ, ধারণ, বহন বা বিলি করার জন্য ‘পতাকা’ ব্যবহার করা যাবে না।

১২. ‘পতাকা’ দ্রুত উত্তোলন করতে হবে এবং সসম্মানে নামাতে হবে।

১৩. ‘পতাকা’ কখনোই আনুভূমিকভাবে বা সমতলে বহন করা যাবে না, সর্বদাই ঊর্ধ্বে এবং মুক্তভাবে থাকবে।

আরও পড়ুন : উন্নয়নের জাদুর কথা জিজ্ঞাসা করে বিদেশিরা : শিল্পমন্ত্রী

১৪. পতাকার অবস্থা যদি এমন হয় যে, তা আর ব্যবহার করা যাবে না, নষ্ট হয়ে গেছে, সেক্ষেত্রে তা মর্যাদাপূর্ণভাবে, বিশেষ করে সমাধিস্থ করে নিষ্পত্তি করতে হবে।

One response to “জাতীয় পতাকা ব্যবহারের নিয়ম”

  1. tulpar24 says:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: