বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন

যে কারণে টুকরো টুকরো এত টাকা

বগুড়া প্রতিনিধি :
বগুড়ার শাহজাহানপুরে সড়কের পাশে বিলের তীরে বিপুল টুকরো টুকরো টাকা মিলেছে। যা নিয়ে প্রশ্ন ও কৌতূহল দেখা দিয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। এত টুকরো টুকরো টাকা এল কোথা থেকে? এমন কৌতূহল মিটেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের বগুড়া কার্যালয়ের উত্তরে। ব্যাংক থেকে জানানো হয়েছে, টুকরো টুকরো টাকাগুলো বাতিল ও অচল।

বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়া শাখার যুগ্ম ব্যবস্থাপক মো. শাজাহান জানান, টাকাগুলো মেশিন দিয়ে কেটে ফেলা হয়েছে। যা কখনোই জোড়া লাগানো যাবে না। বগুড়া পৌরসভার মাধ্যমে বর্জ্য হিসেবে নোটের টুকরোগুলো ফেলা হয়েছে। এক ট্রাক বর্জ্য ফেলা হয়েছে ওই স্থানে। এ ধরনের বিপুল বর্জ্য বাংলাদেশ ব্যাংকের রয়েছে। সেগুলো পর্যায়ক্রমে পৌরসভার মাধ্যমে ফেলে দেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশ ব্যাংকের আদেশ অনুসারে, ১ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বাতিল নোট পুড়িয়ে ধ্বংস করে ফেলা হয়। পর্যায়ক্রমে ১শ, ৫শ ও ১ হাজার টাকার বাতিল নোট টুকরো টুকরো করে কেটে ফেলা হয়। পরিবেশের ক্ষতির বিষয়টি চিন্তা করে টাকা পোড়ানো হয় না। টুকরো টুকরো করা টাকার ১ হাজার ৮শ বস্তা জমা হয় ব্যাংকের বগুড়া কার্যালয়ে। গত দুই দিন আগে (২২ আগস্ট) সেখান থেকে ২৪০ বস্তা ফেলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরে বাতিল টুকরো টাকা বর্জ্য হিসেবে ফেলে দিতে পৌরসভার মেয়রকে চিঠি দেওয়া হয়।

এ দিকে বাতিল নোটের বর্জ্য এভাবে জলাশয়ের পাশে ফেলে দেওয়া কতটা যৌক্তিক হয়েছে এ নিয়ে হচ্ছে সমালোচনা। তবে বিষয়টি নিয়ে স্পষ্ট করে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন বগুড়া পৌরসভার সচিব রেজাউল করিম। তিনি বলেন, টুকরো করা নোটের বস্তা পৌরসভার নির্ধারিত ডাম্পিং স্টেশনে ফেলার নির্দেশনা দেওয়া ছিল। তবে এ কাজে পৌরসভার পরিচ্ছন্ন পরিদর্শকের গাফিলতি রয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: