বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন

লোকসানের বোঝা নিয়ে আমন চাষ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি :
পঞ্চগড়ের সর্বউত্তরের প্রান্তিক জেলা পঞ্চগড়ের বিভিন্ন উপজেলায় মাঠে চলছে আমন ধানের পরিচর্যার কাজ। বোরোর ধানের পর দেখতে না দেখতেই চলে এসেছে আমনের মৌসুম। এবার বেশ বৃষ্টিপাতও হয়েছে। তাই আমনের চারা রোপণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন চাষিরা। যদিও বীজ ও সার সরবরাহ থাকলেও দাম নাগালের বাইরে।

কৃষকরা বলছে বিগত বোরো মৌসুমের লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়েই এবার আমন ধানের চারা রোপন করছেন চাষিরা। তাদের আশা, এই মৌসুমে ভালো দাম পাবেন। কাটিয়ে ওঠবেন আগের লোকসান।

জানা যায়, বিগত বোরো মৌসুমের ধানের মূল্যহ্রাসে উৎপাদন খরচ মিলছে না তাদের। ফলে কৃষকরা ধানের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে মূলধন হারিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন। এ মৌসুমে জেলায় অন্যকোনো ফসল চাষের সুযোগ না থাকায় বাধ্য হয়ে তারা আবারো ধান চাষ (আমন ধান) শুরু করছেন। এর আগে অনেকেই ঋণ- মহাজনে ফসল চাষ করে ন্যায্যমূল্য না পেয়ে একেবারে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। তাই তাদের দাবি এবার যেন ধানের ন্যায্য মূল্যের ব্যবস্থা করা হয় এবং চাষিদের হক ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

জেলা কৃষি বিভাগ বলছে, এবার পঞ্চগড়ে ১ লাখ ৫ হাজার ৯১৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমন চাষের লক্ষ্য ধরা হয়েছে। এর মধ্যে চারভাগের একভাগ জমিতে আমনের চারা রোপণ করা হয়ে গেছে।

তেঁতুলিয়া উপজেলার আসাদুল ইসলাম নামে এক কৃষক  বলেন, একবিঘা জমিতে আমন চাষে খরচ হয় ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা। এই মৌসুমে জেলায় অন্য কোন ফসল চাষের সুযোগ না থাকায় বাধ্য হয়েই তারা আমন চাষ করছেন। তাদের দাবি এবার যেন ধানের ন্যায্যমূল্যের ব্যবস্থা করা হয়।

পঞ্চগড় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবু হানিফ বলেন, বৃষ্টির পানিতে আমন চাষ হওয়ায় বোরোর তুলনায় উৎপাদন খরচ কম হবে। সেচের কোন সমস্যা থাকবে না। তাই চাষিদের লোকসানের ঝুঁকি কম বলে মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: