সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন

ভৈরবে কিশোরীকে গণধর্ষণের চেষ্টা ৥ পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি ৥ আদালতে মামলা

* পাঁচ বছর পর বাড়িতে এসেও বাবা মাকে নিয়ে ইফতার করা হলোনা ওই দিন স্বর্নার

জয়নাল আবেদীন রিটন, ভৈরব প্রতিনিধি ॥
বখাটেদের কারণে পাঁচ বছর পর বাড়িতে এসেও মা-বাবাকে নিয়ে ইফতার করা হলোনা গরীবের মেয়ে স্বর্ণা আক্তারের। ওই দিন ইফতার তৈরি করার আগ মুহুর্তে ৪ বখাটে এসে তুলে নিয়ে যায় স্বর্ণাকে । এ ঘটনাটি ১০ মে (শুক্রবার) ভৈরবের কালিকাপ্রসাদ গ্রামে ঘটেছে। পরে এ ব্যপারে কিশোরগঞ্জ নারী ও শিশু নিযার্তন আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তরা হলো ঃ শরীফ, ফাঈম, বায়েজিদ ও তৌহিদ।
জানা যায়, কিশোরগহ্জের ভৈরবের কালিকাপ্রসাদ গ্রামে স্বর্না ( ১৩ ) নামে এক কিশোরীকে মারধর করে শ্লীলতাহানি ও গণধর্ষণ চেষ্টা করেছে বলে এলাকার চার যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।
মামলার বিবরন ও একাধিক সুত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার ( ১০ মে) সন্ধা আনুমানিক সাতটার সময় কালিকাপ্রসাদ হাইস্কুল সংলগ্ন এলাকার কৃষক নোয়াব আলীর মেয়ে স্বর্না কে বাড়িতে একা পেয়ে একই এলাকার হেদায়েত উল্লাহর ছেলে শরীফ, মনাফ মিয়ার ছেলে ফাঈম, লবু মিয়ার ছেলে বায়েজিদ ও আওয়াল মিয়ার ছেলে তৌহিদ জোড় জবরদস্থি মুলক স্বর্নাকে তার বসত ঘর থেকে তুলে নেয়। পরে তাকে বাড়ি থেকে বেশ দুরে একটি পাট ক্ষেতে নিয়ে শারীরিক ভাবে পাশবিক নির্যাতন করে শ্লীলতাহনিসহ ধর্ষনের চেষ্টা করে। তখন স্বর্নার চিৎকারে স্থানিয় মুন্সি, মিলন ও উজ্জল মিয়া স্বর্নাকে উদ্ধার করে। বাড়িতে আসার পর স্বর্নার মা বাবা মেয়ের মূখ থেকে ঘটনা শুনে এবং শারীরে বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন দেখিয়া অভিযুক্তদের বাড়িতে বিচারের দাবী জানালে অভিযুক্তদের অভিবাবকেরা তাদের অপমান করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। এ দিনই মধ্যরাতে অভিযুক্তরা তাদের পিতাসহ স্বর্নার বাড়িতে এসে বলে এ ঘটনায় কোন ধরনের মামলা মোকদ্দমা করিলে বাড়ি ঘরে আগুন জ্বালিয়ে এলাকা থেকে তাদের তাড়িয়ে দেয়া হবে। এমনকি তারা পরিবারের সবাইকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। অভিযুক্তদের এমন হুমকিতে নিরাপত্বাহীনতায় ভুগছেন ভুক্তভোগী পরিবারটি।

ভিকটিম স্বর্না জানায়, আমরা খুবই গরীব ঘরের সন্তান। আমার বাবা টিউবউয়েল মিস্ত্রি। সামান্য একটু জমি করে। অভাবের কারণে বাবা মা আমাকে ঢাকার একটি বাসায় গৃহকর্মীর কাজে পাঠায়। আমি পাঁচ বছর পর এবার বাড়িতে এসেছি বাবা মাকে ধান কাটা ও তোলার সহযোগিতা করতে। গত শুক্রবার সন্ধায় বাবা মা কৃষিকাজে জন্য ক্ষেতে গিয়ে ছিল। আমি তখন বাড়িতে একা বসে ইফতার তৈরি করছিলাম। এ সময় পাশের বাড়ির শরীফ , ফাইম, বায়েজিদ ও তৌহিদ ঘরে ঢুকে আমাকে একা পেয়ে তারা আমাকে তাদের হাতে থাকা গামছা দিয়ে প্রথমে আমার মূখ বেধে ফেলে এবং আমার গলায় কাস্তে টেকিয়ে পাশে একটি বন্দে নিয়ে যায়। পরে তারা আমাকে যা নিযার্তন করার তা করেছে। আমি এর বিচার চাই।
ভুক্তভোগী স্বর্নার পিতা নোয়াব আলী বলেন, আমি একজন অতি গরীব মানুষ। আমি পোলাপাইনের ভরণ পোষণ ঠিক মত করতে পারিনা বলে ঢাকায় এক বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করতে আমার মেয়েকে দিয়েছিলাম। পাঁচ বছর পর মেয়েটি বাড়িতে আসে। ঘটনার দিন শুক্রবার সন্ধায় অমি আমার মেয়েকে বলেছি মা তুমি ইফতার তৈরি কর আমি ক্ষেত থেকে আসি। আমি চলে যাবার পর ওরা চারজন আমার মেয়েকে মুখে গামছা বেধে ও গলায় কাস্তে ঠেকিয়ে বাড়ি থেকে তুলে বন্দে নিয়ে যায়। সেখানে আমার মেয়েকে মারধর করার সময় তার চিৎকারে স্থানীয় মিলন ও উজ্জল মিয়া আমার মেয়েকে উদ্ধার করে।
ভুক্তভোগী স্বর্নার মা সাহিদা বেগম বলেন, ঘটনার পর আমি আমার মেয়ের মুখে সব শুনে অভিযুক্তদের বাড়ি গিয়ে তাদের অভিবাবকদের সব খুলে বলি। তারা আমার কথার কোন কর্ণপাত করেনি। আমাকে অপমান অপদস্থ করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে । আরো আমাকে হুমকি দেয় এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্যে। আমি তাদের বাড়ি থেকে চলে আসার পর তারা আবার ওইদিন রাত একটার সময় আমাদের বাড়িতে এসে বলে যদি কোন মামলা মোকদ্দমা করি বা কাউকে জানালে তোদেরকে প্রাণে মেরে ফেলবো। এমনকি আমাদের বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দিয়ে এলাকা ছাড়া করবে। আমি এখন আমার মেয়েকে নিয়ে আতংকে দিন কাটাচ্ছি। এ ঘটনায় আমি বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জ নারী ও শিশু নিযার্তন দমন আদালতে তাদেরকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছি।

এ ব্যাপারে ভৈরব থানার ওসি (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ধরনের একটি ঘটনার কথা শুনেছি। তবে অমরা এখনো পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। জানতে পেরেছি এ ঘটনায় আদালতে একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি তদন্তের জন্য সমাজ সেবা অধিদপ্তরকে দায়িত্ব দিয়েছে আদালত। আমাদের কাছে যদি এর দায়িত্ব আসে তাহলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব। এ ব্যাপারে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সাথে কথা হলে মামলার বিষয়টি তিনি স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, আমি বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করে তার পর সব কিছু জানাতে পারবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: