বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ০৩:৫১ অপরাহ্ন

ছাত্রলীগের বিকল্প কমিটি ঘোষণা, নতুন সভাপতি ও সা. সম্পাদকের নাম চূড়ান্ত!

রাজনীতি ডেস্ক :
ছাত্রলীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন পদবঞ্চিতরা। নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি ভেঙে দিয়ে অধিক তদন্তের মাধ্যমে অর্থবহ কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা। এজন্য ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছে পদবঞ্চিতরা। এর মধ্যে সমাধান না হলে ছাত্রলীগের বিদ্রোহী এই অংশটি নতুন করে বিকল্প একটি কমিটি ঘোষণা করবে বলে দৈনিক তোলপাড়কে নিশ্চিত করেছেন একাধিক নেতা।

এমনকি, ছাত্রলীগের পদপঞ্চিতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হল কমিটির ত্যাগী ও পরিশ্রমী সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক থেকে শুরু করে ডাকসুতে ছাত্রলীগের প্যানেলে নির্বাচিতদের নিয়ে একটি বিতর্কহীন কমিটিও চূড়ান্ত করে ফেলেছে। নতুন কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নামও ইতিমধ্যেই আলোচনার ভিত্তিতে মোটামুটিভাবে চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শোভন-রাব্বানীর কমিটিতে ঠাঁই পাওয়া একজন উপ সম্পাদক।

তিনি বলেন, জামায়াত-শিবিরের কর্মী, বিএনপি ও ছাত্রদল করা লোকজন কিভাবে ছাত্রলীগ করার সুযোগ পায়, কাদের ইন্ধনে এমনটা হয়েছে সেগুলো আমরা লিখিত আকারে নেত্রীকে (শেখ হাসিনা) জানাবো। তারপর তিনি যদি আমাদের অনুমতি দেন যে, বিকল্প কমিটি গঠন করার জন্য তবেই এই কমিটি ঘোষণা করবো। কেননা আমরা শেখ হাসিনার রাজনীতি করি। তার বিরুদ্ধে যাওয়ার কোনো ক্ষমতা আমাদের নেই।

এদিকে, মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুর দেড়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন থেকে বিভিন্ন দাবি জানান শামসুন নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিপু তন্বী।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিগত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ বাবু বলেন, যারা সক্রিয়ভাবে বিগত সময়গুলোতে ছাত্রলীগের সঙ্গে জড়িত ছিল তাদের একটি বৃহৎ অংশকে বাদ কিংবা সঠিক মূল্যায়ন না করে ছাত্রলীগে নিস্ক্রিয়, সাবেক চাকরিজীবী, বিবাহিত, অছাত্র, গঠনতন্ত্রের অধিক বয়স্ক, বিভিন্ন মামলার আসামি, মাদকসেবী, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের দায়ে আজীবন বহিষ্কৃতসহ নানা অভিযোগে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পদায়ন করা হয়েছে। এমন ব্যক্তিদের পদায়ন দেখে ছাত্রলীগের একজন নিবেদিত প্রাণকর্মী হিসেবে আমাদের ব্যথিত করেছে।

উল্লেখ্য, আংশিক কমিটি গঠনের প্রায় ১০ মাসের মাথায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। গত শনিবার নতুন কমিটি অনুমোদন দেয় ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। এর আগে গেল বছরের ৩১ জুলাই রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

পরে ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ৬১ জনকে সহ-সভাপতি, ১১ জনকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং ১১ জনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, নতুন গঠিত কমিটিতে অছাত্র-বিবাহিতসহ অনেক বিতর্কিতদের জায়গা দিতে বাদ পড়েছেন অনেক ত্যাগী নেতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: