বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ০৩:২৫ অপরাহ্ন

ভারত থেকে আসছে মারাত্মক ভাইভেক্স ম্যালেরিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ভারতের ত্রিপুরা, মিজোরাম ও মেঘালয় থেকে ভাইভেক্স বা মারাত্মক ম্যালেরিয়া বাংলাদেশে ছড়াচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা। যা বাংলাদেশ থেকে ম্যালেরিয়া দূরীকরণে সবচেয়ে বড় হুমকি বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডা. শহীদ মিলন ভবনে ‘বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস’ উপলক্ষে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ব্র্যাক ও অন্যান্য সহযোগী সংস্থা আয়োজিত গণমাধ্যমে অবহিতকরণ সভায় এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

এতে বলা হয়,আগের তুলনায় ম্যালেরিয়া রোগীর মৃত্যুর হার কমলেও, ঝুঁকিতে রয়েছে এক কোটি ৮০ লাখ মানুষ। দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে ১৩ জেলায় এই ম্যালেরিয়ার প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এমনকি দেশের প্রায় ৯১ শতাংশ ম্যালেরিয়া রোগী এই জেলাগুলো থেকেই আক্রান্ত হন।

ম্যালেরিয়া প্রবণ ১৩ জেলার মধ্যে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবান- পার্বত্য তিন জেলায় ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত এবং মৃত্যুর হার সর্বাধিক।

সভায় ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে ম্যালেরিয়া নির্মূল করা সম্ভব হবে উল্লেখ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, আগে ৬৪ জেলায় ম্যালেরিয়ার ঝুঁকি ছিল বর্তমানে তা কমে ১৩ জেলায় এসেছে। আমাদের চলমান কার্যক্রম অনুসারে নির্মূলের ব্যাপারে আমরা যথেষ্ট আশাবাদী। এ পর্যন্ত ম্যালেরিয়া প্রবণ এলাকায় ১০ দশমিক ৬৯ মিলিয়ন দীর্ঘস্থায়ী কীটনাশকযুক্ত মশারি বিতরণ করা হয়েছে। ২০১৮ সালে ১০ হাজার ৫২৩ জন ম্যালেরিয়া রোগী ছিলেন, যেখানে সাতজন মৃত্যুবরণ করেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, আমাদের দেশে ম্যালেরিয়ার বিভিন্ন প্রকারভেদের মধ্যে ফ্যালসিপেরাম ম্যালেরিয়ার সংখ্যাই বেশি। ভারত-মিয়ানমারে বেশি ভাইভেক্স ম্যালেরিয়া। তবে দেশে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ছাড়াও অন্যান্য জায়গা, বিশেষ করে ভারতের ত্রিপুরা, মিজোরাম ও মেঘালয় এলাকা থেকে এই ভাইভেক্স বা মারাত্মক ম্যালেরিয়া বাংলাদেশে ছড়াচ্ছে। তাই আমরা দ্রুত ভারতের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসব, যাতে এই এলাকায় ম্যালেরিয়া নির্মূল কার্যক্রম ভালোভাবে গ্রহণ করা হয়। তা না হলে আমাদের লক্ষ্য অনুসারে ২০৩০ সালের মধ্যে দেশ থেকে ম্যালেরিয়া নির্ম‚ল করা সম্ভব হবে না।

এ সময় অধিদপ্তরের ম্যালেরিয়া নির্মূল কার্যক্রমের এপিডেমিওলজিস্ট ডা. মশিউর রহমান বিটুর সঞ্চালনায় ও রোগনিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. সানিয়া তাহমিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এমএ ফয়েজ, ব্র্যাকের কমিউনিকেবল ডিজিজ ও ওয়াশ কর্মস‚চির পরিচালক ড. আকরামুল ইসলাম প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: