বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২:১৫ অপরাহ্ন
মানচিত্র প্রতীক

ভৈরবে মোটরসাইকেল চোরদের তৎপরতা বৃদ্ধি – রক্ষা পাচ্ছেনা পুলিশ ও সাংবাদিকের মোটর সাইকেলও

জয়নাল আবেদীনর রিটন, ভৈরব প্রতিনিধি :
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক পড়েছে। আর এই চুরির ঘটনায় সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সাংবাদিক এবং পুলিশ অফিসাররও রেহান পাচ্ছেন না। খোঁদ থানা কমপেক্সের ভিতরে থাকা কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারদের এবং সাংবাদিকদের বাড়ির ভিতর থেকে তাঁদের প্রিয় বাহনটি চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে চোরচক্র। থানা কমপেক্স এবং বাড়ির ভিতরে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করেও সেখান থেকে মোটরসাইকেলটি নিয়ে বীরদর্পে পালিয়ে যাওয়া চোরের টিকিটিও ধরতে পারছেন না পুলিশ।

এইসব চুরির ঘটনায় জনমনে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। থানা কমপেক্সের ভেতর এবং সাংবাদিকদের বাসা থেকে যদি এইভাবে মোটরসাইকেল চুরি হয়, তবে সাধারণ মানুষের অবস্থা ভৈরবে কেমন আছে ? আর সমস্ত ভৈরবের আইন শৃংখলা পরিস্থিতির চেহারাটিইবা কেমন ?

জানাযায়, বুধবার রাতে ভৈরব বাজারের বঙ্গবন্ধু সরণির ভিআইপি রোডের বাসা থেকে এশিয়ান টেলিভিশনের ভৈরব প্রতিনিধি হাজী সজীব আহেেমদের মোটরসাইকেলটি চুরি যায়। বাসার গেইটের ভেতর থেকে ১৫০ সিসির পালসার মোটরসাইকেলটি নিয়ে যায় চোর। রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাহির থেকে এসে তিনি প্রতিদিনের মতো মোটরসাইকেলটি বাসার মূলফটকের ভেতর পার্ক করে রুমে যান। ১০ মিনিট পর এসে দেখতে পান মোটরসাইকেলটি নেই। পরে বাসার সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখেন মুখে মাস্ক করা চোর মোটরসাইকেলটি নিয়ে সটকে পরছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এ বিষয়ে তিনি ভৈরব থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এরআগে গত ২০ মার্চ বুধবার মধ্যরাতে ভৈরব থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই শ্যামল মিয়ার ব্যবহৃত সুজুকি কোম্পানীর ১৬০ সিসির নতুন মোটরসাইকেলটি থানা কমপেক্সের ভেতর থেকে চুরি হয়ে যায়। মাত্র দুদিন আগে মোটরসাইকেলটি তিনি ১ লাখ ৭০ হাজার টাকায় কিনেছিলেন বলে জানান। এর আড়াই মাস আগে তার ১৫০ সিসির একটি পাল্সার মোটরসাইকেল একইভাবে ভৈরব থানা কমপেক্সের ভেতর থেকে চুরি যায়। এ ছাড়া গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে ভৈরব থানার এসআই অভিজিৎ চৌধুরীর ইয়ামাহা ফেজার মডেলের ১৫০ সিসির একটি মোটরসাইকেলও গভীর রাতে থানার গ্যারেজ থেকে চুরি হয়ে যায় বলেও জানান তিনি।

এদিকে গত ৮ মার্চ ভৈরব বিএডিসি সার গুদামের গুদামরক আতাউর রহমানের ব্যবহৃত বাজাজ কোম্পানীর ডিসকভারী ১২৫ সিসির একটি মোটরসাইকেল শহরের কমলপুর এলাকা থেকে চুরি হয়। গত বছর রাহাত ভূঁইয়া সবুজ নামের স্থানীয় এক পত্রিকার প্রতিনিধির পালসার মোটরসাইকেলটি ভৈরবপুরস্থ তার বাড়ির সামনে থেকে দিনে-দুপুরে চুরি হয়ে যায়। এরআগে চ্যানেল ২৪ এর ভৈরব প্রতিনিধি মো: বিলাল হোসেন মোলার ১৫০ সিসির মোটরসাইকেলটি দুপুর ১২টার দিকে তাঁর কমলপুরস্থ বাড়ির সামনে থেকে নিয়ে যায় চোর। একই গ্রামের হাজী জহির উদ্দিন হাইস্কুল রোডের বাড়ির গ্যারেজ থেকে চুরি হয়ে যায় ভৈরব চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক তোফাজ্জল হোসেন মুদারেছের ১২০ সিসির একটি মোটরসাইকেল।

এছাড়াও সা¤প্রতিক সময়ে উপজেলা পরিষদ কমপেক্সের ভেতর থেকে উপজেলা প্রকৌশলীসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনিভাবে ভৈরবে একের পর এক মোটরসাইকেল চুরি হওয়া এবং থানায় জিডি করেও চুরি হওয়া কোন মোটরসাইকেল উদ্ধার না হওয়ায় জনমনে আতংক বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে ভৈরব থানার ওসি মোঃ মোখলেছুর রহমান জানান, কিছুদিন যাবত মোটর সাইকেল চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায়ই ঘটছে মোটর সাইকেল চুরির ঘটনা। আমি সকল অফিসারদের ডেকে নির্দেশ দিয়েছি যে ভাবেই হোক মোটর সাকেল চোর চক্রটিকে চিহ্নিত করে যে ভাইে হোক গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: