শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:১১ পূর্বাহ্ন

কিশোরগঞ্জে ভন্ড ওঝা’র কেরামতিতে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

শাহজাহান সাজু  ঃ
কিশোরগঞ্জ সদর উপজেরার ব্রাহ্মণকচুরী গ্রামে এক ভন্ড ওঝা’র (কবিরাজ) অপচিকিৎসায় মোঃ হানিফ (১০) নামে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। মৃত হানিফ ব্রাহ্মণকচুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্র। সে ওই গ্রামের মোঃ গোলাপ মিয়ার পুত্র বলে জানা গেছে।
এলাকাবাসির একাধিক সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার দুপুর ২টায় বাড়ীর পাশের জমিতে হানিফ ঘাস কেটে নিজ বাড়িতে আসার সময় হঠাৎ পথে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যায়। খবর পেয়ে এলাকাবাসী ও স্থানীয় রশিদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খবর পেয়ে হানিফকে ব্রাহ্মণকচুরী গ্রামের সালামের মোড়ে পল্লী চিকিৎসক দেলোয়ার হোসেনেরর কাছে নিয়ে গেলে তিনি অবস্থার অবনতি দেখে হাসাপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও রোগী হানিফের স্বজনেরা হাসপাতালে না নিয়ে বাড়ীর পাশের ওঝা চান মিয়া মুন্সীর কাছে নিয়ে যায়। ওঝা রোগীকে দেখে বলে চমকে উঠে বলে তাকে তো জাতীসাপে কেটেছে। স্বজনেরা ও চেয়ারম্যান বলেন এখন কি করা? এরপরই শুরু হয় ওঝার ঝারফুক। ওঝা প্রথমে রোগীকে বাড়ীর ওঠানে গামাইলে বসিয়ে ভিজা গামছা মুচরিয়ে দুই পরত করে দড়ির মতো তৈরী করে এবং দুপুর আড়াইটা হতে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রোগী হানিফের শরীরে একের পর এক বারী মারতে থাকে। কিছুক্ষণ পরপর আবার একজন তুলা রাশির লোক নির্ণয় করে তার হাত চালান করে। সন্ধ্যা ৬টার পর ওঝা জানায় যে, রোগী আর ভাল হবে না, সে মারা গেছে। কারণ হিসাবে ওঝা জানায় তাকে সাপে কাটেনি। ভর দুপুরে বাড়ীর পাশের জমিতে তাকে শয়তান তাকে থাবা মেরেছে। ওঝার মৃত ঘোষণা করার পরপরেই তড়িগড়ি করে শিশু হানিফের লাশ দাফন করার প্রস্তুতি নেয় স্বজনরা। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে কিশোরগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ খবর পেয়ে সন্ধ্যার পর ঘটনাস্থলে আসলেই ওঝা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ শিশু হানিফের লাশ কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসে। কিশোরগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবু বকর সিদ্দিক জানান, সন্ধ্যার পর বিষয়টি অবগত হয়ে আমি পুলিশ পাঠিয়ে মৃত হানিফের লাশ হাসপাতালে নিয়ে আসি। কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করলে তার লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছি। সুরতহাল রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। তবে সুরত হাল রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে এলাকাবাসী জানায় চান মিয়া মুন্সী একজন ভন্ড ওঝা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: