বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

সু-প্রভাত বাস চালাচ্ছিলেন কন্ডাক্টর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাজধানীর প্রগতি সরণিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরীকে যে বাসটি চাপা দেয় সেটি চালাচ্ছিলেন কন্ডাক্টর। কন্ডাক্টর ইয়াসিনসহ দুজনকে গ্রেপ্তারের পর এমন তথ্য জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

বুধবার দুপুরের গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. আবদুল বাতেন সংবাদ সম্মেলনে জানান, সু-প্রভাত পরিবহনের বাসচালকের সহকারী ইব্রাহিমকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ও বুধবার সকালে চাঁদপুরের শাহরাস্তি ও ঢাকার মধ্য বাড্ডায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। দুর্ঘটনার সময় সু-প্রভাত পরিবহনের বাসটি চালাচ্ছিলেন কন্ডাক্টর ইয়াসিন। তার লাইসেন্স ছিল না। বাসের চালক আরেকটি দুর্ঘটনা ঘটালে সে আর বাস চালায়নি।

রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারের সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো জানান, বাসচালক সিরাজুল ইসলাম সেদিন ভোর পৌনে ৬টার দিকে সদরঘাট থেকে গাড়ি নিয়ে রওনা হন। সহকারী ইব্রাহিম ও কন্ডাক্টর ইয়াসিন সে সময় বাসে ছিলেন। শাহজাদপুরের বাঁশতলা এলাকায় ওই বাসের চাপায় গুরুতর আহত হন মিরপুর আইডিয়াল গার্লস ল্যাবরেটরি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সিনথিয়া সুলতানা মুক্তা। বাসের যাত্রীরা তখন চালক সিরাজুল ইসলামকে ধরে পুলিশে দেয়। বাসটি তখন রাস্তার পাশে দাঁড়ানো ছিল। উত্তেজিত জনতা বাসে আগুন ধরিয়ে দিতে পারে, এমন আশঙ্কায় মালিক ননী গোপালকে ফোন করে কন্ডাক্টর ইয়াসিন। মালিক তখন ইয়াসিনকে বাসটি দ্রুত নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিতে বলেন। তখন চালকের আসনে বসে পড়েন ইয়াসিন। নর্দায় প্রগতি সরণিতে বাসটি আবরারকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ সকালে প্রগতি সরণি এলাকায় সু-প্রভাত বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হন। এর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। টানা দুই দিন চলে এ বিক্ষোভ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
themesbatulpar4545
%d bloggers like this: