FaceBook twitter Google plus utube RSS Feed
  

৩০ অক্টোবর, ২০১৪ - ৭:২৯ অপরাহ্ণ

►আইজ আর রিকশা চালাইতাম না, মন্ত্রীর বিয়া খাইতে যামু

x

jamai-bu 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Minister-in Minister-ho Comilla-Inner1 Comilla-Inner

 

তোলপাড় ডেস্ক ► রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের বিয়ে আজ শুক্রবার। মন্ত্রীর শ্বশুরবাড়ি চান্দিনায় বিয়ের আয়োজন সম্পন্নের পথে। ৬৮ বছর বয়সে মন্ত্রীর বিয়ে নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে কৌতূহল, আলোচনা, সমালোচনার যেন শেষ নেই। শহর গ্রামের সব জায়গায় চলছে মন্ত্রীর বিয়ে নিয়ে নানা কথা, নানা গল্প।

সরগরম হয়ে উঠেছে জেলার অন্যান্য এলাকার মতো চান্দিনা ও কুমিল্লা জেলা শহর। বাসস্ট্যান্ড, চায়ের দোকান, বাজার, মোড়ে মোড়ে থেমে থেমে উঠছে মন্ত্রীর বিয়ে প্রসঙ্গ।

নগরীর কান্দিরপাড় এলাকার মহিন মিয়া নামে এক রিকশা চালক বলেন, প্রত্যেক দিন তো রিকশা চালাই। রিকশা চালাই টাকা কামাই। একদিন না কামালে কিতা হয়। শুক্রবার রিকশা চালাইতাম না, মন্ত্রীর বিয়া চাইতাম (দেখতে) যামু।’

কুমিল্লার নগরীর খন্দার শপিং কমপ্লেক্সে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় আনোয়ার নামে এক ব্যবসায়ীর।

তিনি বলেন, আমার দোকানে এসে ক্রেতারা মন্ত্রীর বিয়ে নিয়ে নানা মন্তব্য করেন। আমরাও এ সব মন্তব্যে শরিক হই। মন্ত্রীর বিয়ের ব্যাপারটি আমরা বেশ উপভোগ করছি।

উপজেলা পরিষদ এলাকায় অপর রিকশা চালক মফিজ উদ্দিন বলেন, আমাগো মন্ত্রী বিয়া করতেছে এইড্যা হুনে আমরা খুব খুশি হইছি। এখন আমরা গর্বিত আমাদের মন্ত্রী চিরকুমার না। দোয়া করি মুজিব সাব সংসার-ধর্ম নিয়া যেন ভালাভাবে জীবন কাটাইতে পারে এবং মন্ত্রীত্ব চালাতে পারে।

চান্দিনার আবদুল আওয়াল নামে মুদি দোকানি বলেন, ভাই রিক্তা এবং রেলমন্ত্রীর বিয়ের কথা- আইজক্যা দুই মাস হুনতে আছি। এই নিয়া মানুষের নানা কতা কান দুডারে কানঝালা কইর‌্যা ফেলাইছে।

চান্দিনার স্থানীয় সাংবাদিক গোলাম মোস্তফা জানান, রেলমন্ত্রীর শ্বশুরবাড়িতে লোকজনের আয়োজন দেখেছি। আজ বিকেল থেকেই হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমাচ্ছে। এলাকার কাঁচা রাস্তা মন্ত্রীর বিয়ে উপলক্ষে পাঁকা করা হয়েছে।

কনে বাড়ির আয়োজন : কনে হনুফা আক্তার রিক্তার (২৯) বাবার বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের মিরাখলা গ্রামে বর্ণাঢ্য আয়োজন করা হয়েছে। বর সাজে রেলমন্ত্রী ঢাকার বেইলী রোডের সরকারি বাসভবন থেকে চান্দিনায় কনের বাড়িতে যাবেন। ইতোমধ্যে নান্দনিকভাবে তৈরি করা হয়েছে দুটি বিয়ের গেট। পুরো বাড়ি সাজানো হয়েছে আলোকসজ্জার লাল-নীল বাতি দিয়ে। বরযাত্রীদের আপ্যায়নের জন্য তৈরি করা হয়েছে তিনটি প্যান্ডেল। নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও সেবার জন্য কনের পরিবারের পক্ষ থেকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এক শ’ স্বেচ্ছাসেবক।

অতিথিদের অভ্যর্থনা জানাতে বিয়েবাড়ির প্রধান ফটকে উভয়পক্ষ থেকে একাধিক ব্যক্তি দায়িত্ব পালন করবেন। তারা অতিথিদের আমন্ত্রণের বিষয়টি নিশ্চিত করে ভেতরে প্রবেশের সুযোগ দেবেন। আমন্ত্রণ ছাড়া কোনো ব্যক্তি বিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করার সুযোগ পাবেন না। কনের বাড়ির সব আয়োজনের দায়িত্ব পালন করছেন কনের খালাত ভাই কুমিল্লা উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির নেতা লুৎফুর রেজা খোকন।

তিনি জানান, অনুষ্ঠানে ৭শ’ বরযাত্রীসহ মোট দেড় হাজার অতিথির আপ্যায়নের জন্য তিনটি প্যান্ডেল করা হয়েছে। বর ও ভিআইপি অতিথিদের জন্য একটি প্যান্ডেল। অতিথিদের অভ্যর্থনার জন্য আরেকটি প্যান্ডেল। অপর প্যান্ডেলটি খাবারের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এতে প্রতি ব্যাচে সাড়ে তিন শ’ অতিথি একত্রে খাবার খেতে পারবেন। সব অতিথিদের জন্য একই খাবারের ব্যবস্থা থাকবে।

নিরাপত্তা : প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জেলার কুটুম্বপুর বাসস্টেশন থেকে কনের বাড়ি পর্যন্ত বিভিন্ন পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। এ ছাড়া ভিআইপিসহ অতিথিদের বাড়তি নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন।

বৌভাত অনুষ্ঠান : বৌভাতের অনুষ্ঠান হবে ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় সংসদ ভবনের ২ নম্বর এলডি হলে। কুমিল্লার ও মন্ত্রীর এলাকার লোকদের জন্য ৬ ডিসেম্বর বৌভাত হবে নিজবাড়ি চৌদ্দগ্রামের বসুয়ারায়। এ বৌভাত অনুষ্ঠানের কার্ড বিতরণও প্রায় শেষ।

যেভাবে বর-কনের সখ্য : পূর্ব থেকে পারিবারিকভাবে মন্ত্রী মুজিবুল হকের পরিবারের সঙ্গে দূরসম্পর্কের আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিল কনে হনুফা আক্তার রিক্তার পরিবারের সঙ্গে। দীর্ঘদিন উভয় পরিবারের কোনো প্রকার যোগাযোগ না থাকলেও গত তিন বছর আগে উভয়ের মাঝে সখ্য গড়ে উঠে। আস্তে আস্তে একে অপরের আস্থা ও ভালবাসা অর্জন করে চলে গেল প্রায় তিনি বছর। গত সেপ্টেম্বরে মন্ত্রী হঠাৎ নিজেই বিয়ের ঘোষণা দেন।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মন্ত্রীর এক ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি বলেন, আমরা সব সময় দেখেছি মন্ত্রী মহোদয় একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেন। কিন্তু গত তিন বছর থেকে মন্ত্রী আরও একটি মোবাইল ব্যবহার শুরু করেন। তবে ওই মোবাইলের নাম্বার কাউকে দেননি তিনি। ওই মোবাইলটিতে ফোন এলেই মন্ত্রী তার ব্যক্তিগত রুমে গিয়ে কথা বলতেন। এখন বুঝলাম তিনি মনে হয় আমাদের হবু ভাবির রিক্তার সঙ্গেই কথা বলতেন।

ওই ব্যক্তি আরও বলেন, প্রায় তিন বছর পূর্বে হনুফা আক্তার রিক্তা চান্দিনার মীরাখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক সাইফুল ইসলামের সঙ্গে চাকরির বিষয়ে সুপারিশের জন্য রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপির (তৎকালীন হুইপ) কাছে যান। তখন থেকেই রেলমন্ত্রী সঙ্গে রিক্তার পরিচয়। এরপর থেকেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

বর পরিচিতি : মুজিবুল হক ১৯৪৭ সালের ৩১ মে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের বসুয়ারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম মরহুম রজ্জব আলী, মাতা মরহুমা সোনাবান বিবি, তিনি ৮ ভাই বোনের মধ্যে সবার ছোট। তিনি নিজ এলাকায় তার শিক্ষাজীবন শুরু করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, ডিগ্রি এবং মাস্টার্স শেষ করেন। এর পর তিনি এলএলবি সম্পন্ন করে আয়কর আইনজীবী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন।

১৯৬৬ সালের ছয় দফা, ১৯৬৯ এর গণ-অভ্যূত্থান, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ এবং নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন তিনি। কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসন থেকে ১৯৯৬ সালে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ২০০৮ সালে দ্বিতীয়বার নির্বাচিত হন। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গত সরকারের শেষ দিকে ২০১২ সালে তিনি রেলপথ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি রেলপথ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন।

কনের পরিচয় : হনুফা আক্তার রিক্তা ১৯৮৫ সালের ২০ মে চান্দিনা উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম মরহুম হাবিব উল্লা মুন্সী, মা জোসনা বেগম, তিনি ৭ ভাই বোনের মধ্যে সবার ছোট। ২০০১ সালে নিজ এলাকার গল্লাই আবেদা নূর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে তিনি এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরে চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ ডিগ্রি কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করে ঢাকার একটি প্রাইভেট কলেজ থেকে মাস্টার্স পাস করেন। পরে ঢাকা বঙ্গবন্ধু ‘ল’ কলেজ থেকে তিনি এলএলবি সম্পন্ন করেন। বর্তমানে রিক্তা হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ বাংলাদেশ লিমিটেডের আইন উপদেষ্টা হিসেবে কর্মরত আছেন।

print