FaceBook twitter Google plus utube RSS Feed
  

১৬ জানুয়ারি, ২০১৭ - ৫:২৮ অপরাহ্ণ

সংবিধানের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই : কাদের

kader

x

সংবিধানের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই : কাদের

তোলপাড় প্রতিবেদক : নির্বাচন কমিশন বিষয়ে সংলাপের কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সোমবার দুপুরে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে ‘বিএনপি-জামায়াতের তাণ্ডব ও অগ্নিসন্ত্রাসের খণ্ডচিত্র প্রদর্শন’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিএনপি-জামায়াতের ‘আগুন সন্ত্রাসের’ সমালোচনা করে কাদের বলেন, আপনারা গণতন্ত্রকে উদ্ধার করতে চান নাকি হত্যা করতে চান শিকারি হয়ে? এখন আপনারা গণতন্ত্রের জন্য, সংলাপের জন্য মায়াকান্না করছেন। তখন এ মায়াকান্না কোথায় ছিল?

১৫ আগস্টের ঘটনার পরবর্তী সময়ে বিএনপির অবস্থানের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, হত্যা যে করে আর হত্যাকারীদের যে প্রশ্রয় দেয়, পুরস্কৃত করে; তারাও হত্যাকারী।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে বিএনপি চেয়ারপার্সনকে প্রধানমন্ত্রীর ফোনের বিষয়টি উল্লেখ করে কাদের বলেন, ‘কার সঙ্গে সংলাপ? প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান নোংরাভাবে, অশ্রাব্য ভাষায় প্রত্যাখাত হয়েছিল। আমরা ভুলিনি, জনগণ ভোলেনি।

খালেদার উদ্দেশ্যে ২১ আগস্টের ঘটনার বিবরণ তুলে তিনি বলেন, আপনি যাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিলেন তিনিই আপনাকে ফোনে সংলাপের আহ্বান জানিয়েছিলেন। এখন সংলাপের কথা বলেন, সেদিন কেন পরিবেশ নষ্ট করেছিলেন? এ পরিবেশে ওয়ার্কিং আন্ডারস্ট্যান্ডিং থাকে? বিষাক্ত এ পরিবেশ কে সৃষ্টি করলো?

খালেদা জিয়ার পুত্র আরাফাত রহমান কোকোর মরদেহ দেখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাখাত হওয়ার বিষয়ে কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জন্য দরজা বন্ধ করে সংলাপের দরজা বন্ধ করা হয়েছিল।

বিএনপি-জামায়াতের নির্বাচনবিরোধী আন্দোলনে আহতদের স্মরণ করে তিনি বলেন, সংলাপ হলে কি তাদের আহাজারি বন্ধ হবে? তারা তাদের করুণ জীবন-জিজ্ঞাসার জবাব পাবে?

তিনি বলেন, সবকিছুর সমাধান সংবিধান। সংলাপের সুযোগ থাকলে তা গণতন্ত্রের স্বার্থে হবে। কিন্তু সংবিধানে যা পরিষ্কার আছে, তার বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

কাদের বলেন, সংলাপ তো রাষ্ট্রপতির সঙ্গে হয়েছে, খুশিও (বিএনপি) হয়েছে। এখন শুনছি দুই নেত্রীকে বসাতে হবে। যারা দুই নেত্রীকে বসাতে চান তাদের বলবো, ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট একটু স্মরণ করুন। এ পরিবেশ আপনারাই নষ্ট করেছেন।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা আইনের কথা বলেছি। আর যারা বড় কথা বলেন, তারা বলেছেন সমঝোতার কথা। আমাদের রাজনীতির উদ্দেশ্য পরিষ্কার। বাইরে-ভেতরে এক, আমরা ষড়যন্ত্র করি না, ষড়যন্ত্রের শিকার হই।

এ সময় উগ্র-সাম্প্রদায়িক শক্তির বিষবৃক্ষ অনেক বিস্তৃত হয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, একে সহজে উপড়ে ফেলা যাবে না। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। খণ্ড খণ্ড প্রতিবাদ না করে একত্রিত হতে হবে।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-পরিষদ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

print