FaceBook twitter Google plus utube RSS Feed
  

১১ জানুয়ারি, ২০১৫ - ৪:৫৬ অপরাহ্ণ

রাজধানীতে ১৭ ককটেল বিস্ফোরণ, ৪ গাড়িতে আগুন

x

fire_thereport24

তোলপাড় প্রতিবেদক : বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের অবরোধের ষষ্ঠ দিন রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এলাকাসহ রাজধানীতে বিক্ষিপ্তভাবে ১৬টি ককটেল বিস্ফোরণ ও চারটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা।

সর্বশেষ রাত সোয়া ৮টার দিকে মোহাম্মদপুরের বিআরটিসি বাসস্ট্যান্ডে একটি ১২ নম্বর বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তারা ৪টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে মোহাম্মদপুর থানার ওসি মো. আজিজুল হক এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেননি।

এর আগে পৌনে ৮টার দিকে আব্দুল্লাহপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ পরিবহণে (৩ নম্বর) একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।

দ্য রিপোর্টকে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার ইন্সপেক্টর ফরহাদুজ্জামান। তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

রাজধানীর দক্ষিণ কমলাপুরে সর্দার গার্মেন্টের সামনে রাত সাড়ে ৭টার দিকে একটি লেগুনায় (হিউম্যান হলার) আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এ সময় গাড়িচালক মো. সেলিম (৩৫) দগ্ধ হন।

মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বি এম ফরমান আলী ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।

রাজধানীর মিরপুরের শেওড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে বিকেল ৪টার দিকে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।

ফায়ার সার্ভিসের কর্তব্যরত অফিসার শাহজাদী সুলতানা খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তবে মিরপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তাহমুদুল হাসান বলেন, ‘দুর্বৃত্তরা একটি যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগ করার চেষ্টা করেছিল। তবে পুলিশ তৎপর থাকায় বাসে অগ্নিসংযোগ করতে পারেনি।’

অন্যদিকে, সন্ধ্যার পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় লক্ষ্য করে একটি ককটেল নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্বৃত্তরা রবিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়াল লক্ষ্য করে একটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় ওই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম এ বিষয়ে জানান, একটি ককটেল নিক্ষেপ করা হয়েছে বলে শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া অবরোধের মধ্যে দুর্বৃত্তরা পল্টনে ৫টি, সিটি কলেজের সামনে ২টি ও ধানমন্ডিতে ৫টি ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। যদিও ঘটনাগুলোর সত্যতাও সংশ্লিষ্ট থানা স্বীকার করেনি।

print