FaceBook twitter Google plus utube RSS Feed
  

৮ আগস্ট, ২০১৭ - ৪:০২ অপরাহ্ণ

চালের মূল্য বৃদ্ধি রোধে পদক্ষেপ নিন

Rice20170806142020

x

সম্পাদকীয়:
আমদানির পরও বাজারে চালের মূল্য কমার পরিবর্তে বেড়ে যাচ্ছে। আমদানি করা মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে বস্তাপ্রতি দুই হাজার ১০০ থেকে দুই হাজার ১৫০ টাকায়। আগে বিক্রি হতো দুই হাজার ৫০ টাকায়। প্রতি বস্তায় (৫০ কেজি) দাম বেড়েছে ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। অর্থাৎ কেজিপ্রতি বেড়েছে ১-২ টাকা। পাইকারিতে কয়েক দিন আগে মোটা চাল বিক্রি হতো ৪০ থেকে ৪১ টাকার মধ্যে। এখন এক থেকে দেড় টাকা বেড়ে গেছে।

এর আগে অব্যাহতভাবে দাম বৃদ্ধির মুখে সরকার আমদানি শুল্ক কমিয়ে দেয়। পাশাপাশি সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপর বাজারে আমদানি করা চালও এসে পৌঁছেছে। কিন্তু এরপরও চালের দাম কমছে না। এমনিতেই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে ভোগান্তিতে মানুষ। তার ওপর চালের মূল্য বৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি আরো বেড়েছে আছে। এ অবস্থার অবসান হওয়া জরুরি।

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে আনতে আমদানি শুল্কহার কমানো, ব্যবসায়ীদের জন্য বাকিতে এলসি খোলার সুযোগ এবং ভিয়েতনাম থেকে আড়াই লাখ টন চাল আমদানির ঘোষণা দেয় সরকার। এই চাল বাজারে আসার পর মূল্য কমার কথা। কিন্তু তা কমেনি। কয়েকদিন স্থিতিশীল থাকার পর আবার বাড়তে শুরু করে। ব্যবসায়ীরা চালের দাম বৃদ্ধির পেছনে পরিবহন সমস্যাকে দায়ী করছেন। তারা বলছেন, ভারত থেকে চাল আনতে অনেক সময় ট্রাকের লম্বা লাইনে পড়তে হয়। যত বেশি সময় লাগে তত বেশি ভাড়া গুনতে হয়। এ সমস্যার কারণেই এখন দাম বাড়ছে।

চালের দাম বাড়লে সবচেয়ে বিপাকে পড়তে নিম্নবিত্তের মানুষকে। কেননা তাদের আয়-রোজগারের উপায় সীমিত। যারা মাস-মাইনের চাকরিজীবী তারাই বেশি বিপাকে পড়েন। দৈনন্দিন জীবনে চাল অত্যাবশ্যকীয়। যত দামই হোক, জীবন বাঁচাতে চাল কিনতেই হয়। এ কারণে চালের দাম বাড়লে বেশি কষ্টে পড়েন নিম্নবিত্তের মানুষ। এ অবস্থার অবসান হওয়া জরুরি।

আমরা আশা করি, সরকার চালের দাম বাড়ার এই প্রবণতা রোধে অবিলম্বে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবে। এর পেছনে কোনো কারসাজি থাকলে তা ভেঙে দিতে হবে এবং দায়ীপক্ষের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। সাধারণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে হবে চালের মূল্য । চালের প্রচুর মজুদ থাকার পরও কেন দাম কমছে না তা খতিয়ে দেখে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিতে হবে। পাশাপাশি বাজার ব্যবস্থাপনাকে সময়োপযোগী, শক্তিশালী ও কার্যকর করতে হবে।

print