FaceBook twitter Google plus utube RSS Feed
  

৩১ অক্টোবর, ২০১৬ - ১০:২৫ অপরাহ্ণ

কৌটার দুধ শিশুদের রোগ প্রতিরোধে সক্ষম?

milk1

x


সুমাইয়া ইসরাম সুমী :
বহু বছর ধরেই একটি বিতর্ক চলে আসছে যে, শিশুর জন্য মায়ের বুকের দুধই কি সেরা, নাকি প্রয়োজন অনুসারে শিশুকে বাজারে প্রচলিত কৌটার দুধ খাওয়ানো যেতে পারে? স্বাস্থ্যবিজ্ঞানীরা এখনো পর্যন্ত একটি যুতসই ব্যাখ্যার মাধ্যমে এই বিতর্কের অবসান করতে পারেননি।

মায়ের দুধ যখন একটি শিশুর ইমিউন সিস্টেমে প্রবেশ করে তখন শিশুর স্থূলতা, পেটের পীড়া এবং এক ধরনের চর্মরোগের প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। আশার কথা হলো নতুন একটি গবেষণায় দেখা গেছে, মায়ের বুকের দুধে প্রাকৃতিকভাবে যে চিনি রয়েছে যা শিশুর অন্ত্রে উপকারী ভূমিকা রাখে সে ধরনের চিনি প্রচলিত কৌটার দুধের সঙ্গেও মিশ্রণ করা সম্ভব।

কৌটার দুধ মূলত গরু বা মহিষের দুধের সঙ্গে আরো কিছু প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদান মিশিয়ে তৈরি করা হয়। যখন বিজ্ঞানীরা এই কৌটার দুধের সঙ্গে প্রাকৃতিক চিনি মিশিয়ে পরীক্ষা করেন তখন দেখতে পান এ দুধ পান করা শিশুরা মায়ের বুকের দুধ পান করা শিশুদের মতই বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সক্ষম হয়ে উঠেছে। এবং তাদের শরীরে চর্মরোগ দেখা দেওয়ার আশঙ্কাও অনেক কমে গেছে।

তাই বিজ্ঞানীরা এখন আশা প্রকাশ করছেন, মায়ের বুকের দুধের মতোই কৌটার দুধও শিশুদের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করতে পারে। লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষক বিজ্ঞানী ড. নিকোলাস আন্দ্রিয়াস এই গবেষণাটি সম্পর্কে বলেন, এটা ভালো যে প্যাকেটজাত দুগ্ধ শিল্প অনেক উন্নতি করছে। মায়ের বুকের দুধের বিকল্প হিসেবে নিজেদের স্থান করে নিতে তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্যাকেটজাত দুধের উন্নতি সাধন আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। বিশেষ করে সেই সব মায়েদের জন্য যারা বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার কারণে তাদের শিশুদের বুকের দুধ খাওয়াতে পারেন না।

অ্যাবোট নামক একটি কোম্পানি কর্তৃক পরিচালিত এই গবেষণা প্রতিবেদনটি ‘হিউম্যান নিউট্রেশন’ জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। যদিও অনেকে বলছেন, এ নিয়ে আরো বিস্তারিত গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে। তাছাড়া এটি আগে থেকেই বহুল প্রমানিত যে, কৌটার দুধ কখনও মায়ের বুকের দুধের বিকল্প হতে পারে না।

print