শনিবার , ৬ মে ২০২৩ | ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দুর্নীতি
  2. অর্থনীতি
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আরও
  5. ইসলাম
  6. করোনাভাইরাস
  7. খাদ্য
  8. খেলাধুলা
  9. জাতীয়
  10. বানিজ্য
  11. বিনোদন
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সর্বশেষ

এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে দাখিল পরীক্ষা দিলো অনুপস্থিত সাদিয়া

প্রতিবেদক
tulpar
মে ৬, ২০২৩ ১:১৫ অপরাহ্ণ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাশিতা-তুল ইসলামের হস্তক্ষেপে দাখিল পরীক্ষা দিতে পেরেছে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থী সাদিয়া আক্তার।

জানা যায়, মঙ্গলবার (০২ মে) উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাশিতা-তুল ইসলাম ডাহরা গোলপুকুর পাড় সৈয়দুনেচ্ছা দাখিল মাদরাসা কেন্দ্রে প্রবেশ করে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা জানতে চান।

এ সময় মেধাবী ছাত্রী সাদিয়া আক্তারসহ কয়েকজন অনুপস্থিত ছিলেন।
পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত থাকার বিষয়টি গুরুত্ব অনুধাবন করে নাশিতা-তুল ইসলাম ওই মাদরাসার সুপারকে সঙ্গে নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর খোঁজ নিতে সাদিয়া আক্তারের বাড়িতে যান। অনুপস্থিত ও অসুস্থ সাদিয়া আক্তারকে গাড়িতে করে কেন্দ্রে প্রবেশ করিয়ে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন তিনি।

সাদিয়া আক্তার উপজেলার শাহেদল গ্রামের এতিমখানা সংলগ্ন চাঁন মিয়ার মেয়ে এবং দাপুনিয়া দাখিল মাদরাসার দাখিল পরীক্ষার্থী।

এ বিষয়ে দাপুনিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মো. মঞ্জুরুল হক জানান, প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অনুপস্থিত সাদিয়া আক্তার পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারায় আমরা চিরকৃতজ্ঞ।

এ প্রসঙ্গে উপজেলার সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাশিতা-তুল ইসলাম বলেন, অভিভাবকের অসচেতনার কারণে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় সাদিয়া কান্না করছিল। মানবিক দিক বিবেচনা করে তাকে দ্রুত পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এছাড়াও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর ব্যাপারে নজর রাখতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার ডাহরা গোলপুকুর পাড় সৈয়দুনেচ্ছা দাখিল মাদরাসা কেন্দ্রে মঙ্গলবার (০২ মে) বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে দাখিল (সমমান এসএসসি) আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা চলছিল। কিন্তু উপজেলার দাপুনিয়া দাখিল মাদরাসার পরীক্ষার্থী সাদিয়া আক্তার পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে অসুস্থ বোধ করায় সে বাড়িতে অবস্থান করছিল। পরীক্ষার সময় গড়িয়ে গেলেও অভিভাবককের দায়িত্বহীনতার কারণে তার পরীক্ষা দেওয়ার বিষয়টি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল।

সর্বশেষ - Uncategorized